কিভাবে আমার একাউন্টের ব্যক্তিগত তথ্য এবং একাউন্টের তথ্যসমুহের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায়, সে ব্যপারে কি আপনাদের আরো কোনো পরামর্শ রয়েছে?

১। আপনার একাউন্টের তথ্যসমুহ কারো সাথে শেয়ার করবেন না।

কখনো আপনের একাউন্টের তথ্য কারো সাথে শেয়ার করবেন না! তথ্য শেয়ার করা বলতে আমরা বুঝাচ্ছি যেমন আপনার ইউজার নেইম, পাসওয়ার্ড, ফোন নম্বর এবং ইমেইল এড্রেস, এই ৪টি জিনিস কাউকে জানতে দিবেন না। এই তথ্য গুলো আপনি এবং সুধুমাত্র আপনি আপনার কাছে ব্যাক্তিগত ভবে রাখবেন। আপনার ব্যাক্তিগত তথ্যগুলো সুরক্ষিত থাকলে, আপনার একাউন্টটি হ্যাক হওয়া থেকে প্রতিরোধ করবে। আপনার অ্যাকাউন্টে তখনই হ্যাক হতে পারে, যখন আপনার ব্যাক্তিগত তথ্যগুলো অন্য কেউ জেনে যাবে এবং অনলাইনে  এসে আপানর অ্যাকাউন্টটি তার নিজের বলে দাবি করবে। আপানর অ্যাকাউন্টিতে যদি এই ধরনের কোনো ঘটনা ঘটে থাকে, তাহলে শুধুমাত্র আপনি নিজেই এরে জন্যে দায়ী থাকবেন।

২। আপনার একাউন্টটি কারো সাথে শেয়ার করবেন না।

আপনার একাউন্টটির এক্সেস শুধুমাত্র আপনার কাছেই থাকতে হবে। অনেকের একাউন্টই সাসপেন্ড হয়ে যায়, যখন তারা নিয়ম লঙ্ঘন করে, একাউন্টের মালিকানা নিয়ে প্রতিযোগিতা করে, অথবা একাউন্ট বেচাকেনার ইত্যাদির মত অনৈতিক কাজকর্ম করে থাকে। আর আপনি যাদের সাথে একাউন্ট শেয়ার করবেন তারা একাউন্টটির প্রতি আপনার মত সচেতন এবং যত্নবান নাও হতে পারে। 

৩। আপনার ব্যাক্তিগত তথ্যসমুহ সত্য এবং বৈধ কিনা তা নিশ্চিত করুন।

আপনার একাউন্টটি রেজিস্ট্রেশন করার পরে, আপনাকে নিজের ফোন নম্বর এবং ইমেইল এড্রেস ভেরিফাই করতে হবে। দয়াকরে মনে রাখবেন,আপনার ফোন নম্বর এবং ইমেইল এড্রেসটি যেন সব সময় একটিভ থাকে, কারন এই ফোন নম্বর এবং ইমেইল এড্রেসেই আমরা বিশেষ প্রয়োজনে আপনাকে কল করব এবং আমাদের গুরুত্বপূর্ণ মেসেজ গুলো পাঠাব।

৪। একটি স্ট্রং পাসওয়ার্ড নির্বাচন করুন। 

ভালো পাসওয়ার্ড গুলো সাধারনত দীর্ঘ, জটিল এবং অনুমান করা খুবই কঠিন হয়। আপনি যদি বড় হাতের ও ছোট হাতের অক্ষর এবং গাণিতিক সংখ্যা মিলিয়ে পাসওয়ার্ডটি তৈরী করেন, তাহলে আপনার একাউন্টটি অপেক্ষাকৃত বেশী নিরাপদ থাকবে। কেউ যদি আপনার একাউন্ট সম্পর্কে অনেক কিছু জেনে গিয়ে থাকে, তাহলে এখনই একাউন্টের পাসওয়ার্ডটি আরো জটিল এবং কঠিন করে নিন। এই পাসওয়ার্ডের ব্যাপারে আমাদের পরামর্শ হচ্ছে, আপনি কিছু দিন পর পর অবশ্যই আপনার পাসওয়ার্ডটি পরিবর্তন করবেন।

৫। আপনার ডিপোজিট স্লিপটি কখনো কারো সাথে শেয়ার করবেন না।

এই বিষয়টি খুবই গুরুত্বের সহিত মনে রাখবেন। কিছু মেম্বার ডিপোজিট করার সময় তাদের নিজের একাউন্ট থেকে ক্যাশআউট না করে, অন্য কারো একাউন্ট হতে ক্যাশআউট করে থাকে অথবা অন্য একজনকে নিজের ডিপোজিট রিকোয়েস্টটি সাবমিটের করার জন্য হেল্প করতে বলে। ডিপোজিটের সময় এই জাতীয় কাজ করার জন্য আমরা কোনো ভাবেই আপনাকে উৎসাহিত করছিনা, কারন এটি আপনার একাউন্ট এবং একাউন্টের টাকা এ দুইটিকেই ঝুকির মধ্যে ফেলতে পারে।

৬। আপনার ব্রাউজারের ক্যাস্‌ ক্লিয়ার করুন।

ইন্টারনেট থেকে আপনি যখন কোন একটি ওয়েব পেইজ দেখেন তখন সেটি ক্যাস্‌ ফাইল হিসেবে আপনার ডিভাইসে থেকে যায়। এই ক্যাস্‌ ফাইলগুলি, যারা সিস্টেমে ঢুকবে তাদের জন্য একটি সম্ভাব্য লক্ষ্য হিসাবে,ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রেরিত বা প্রাপ্ত ডেটার চিত্রগুলি ধরে রাখতে পারে। একারনে, আমরা অতি দৃঢ়তার সাথে আপনাকে পরামর্শ দিচ্ছি যে, প্রতিবার ইন্টারনেট ব্যবহারের পর আপনার ব্রাউজারের ক্যাস্‌ ডিক্সটি ক্লিয়ার করবেন। বিস্তারিত ভাবে জানতে এখানে  ক্লিক করুন।

৭। সন্দেহজনক কোনো কার্যকলাপ দেখলে সাথে সাথে রিপোর্ট করুন।

আপনার যদি মনে হয় যে আপনার একাউন্টটি কোনো ব্যাক্তি অবৈধ ভাবে এক্সেস করছে, দয়াকরে আপনার পাসওয়ার্ডটি পরিবর্তন করুন, আপনার ট্রানজেকশন এবং ব্যাংকিং এমাউন্ট চেক করুন। যদি ট্রানজেকশনের মধ্যে সন্দেহজনক কোনো কিছু অথবা কোনো রকম অসামঞ্জস্যতা দেখতে পান তবে, সাথে সাথে লাইভ চেটে এসে আমাদের তা জানান অথবা এই এড্রেসে আমাদের একটি ইমেইল করুনঃ  info@baji.live.

 

নিচের ভিডিওটি দেখুন!
Baji অ্যাকাউন্ট নিরাপদ রাখার জন্য নির্দেশিকা

54580cookie-checkকিভাবে আমার একাউন্টের ব্যক্তিগত তথ্য এবং একাউন্টের তথ্যসমুহের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায়, সে ব্যপারে কি আপনাদের আরো কোনো পরামর্শ রয়েছে?